এখনো বিয়েশাদি হচ্ছে, কেউ স্বাস্থ্যবিধি মানছে না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, দেশে ক্রমেই করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বাড়ছে। তিনি বলেন, এখনো বিয়েশাদি হচ্ছে, কেউ স্বাস্থ্যবিধি মানছে না। আজ রবিবার (৩০ জানুয়ারি) বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অ্যান্ড সার্জনস (বিসিপিএস) মিলনায়তনে করোনা টিকা এবং করোনা পরিস্থিতি বিষয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসব কথা বলন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, মহামারি করোনাভাইরাসের টিকার বুস্টার ডোজ দেওয়ার ন্যূনতম বয়স আরও কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এখন থেকে ৪০ বছর বয়স হলেই করোনার বুস্টার ডোজ নেওয়া যাবে। সেইসঙ্গে ১২ বছরের উর্ধ্বে সকলকে টিকা দেওয়া হবে বলেও নিশ্চিত করেছেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, টিকা দেওয়া আমরা ওয়ার্ড পর্যায়ে নিয়ে গেছি, এখন টিকা দিতে কম লোক আসছে। টিকা দেওয়ায় মৃত্যুর হারও এখন কম। মন্ত্রী আরও বলেন, ৫০ বছর বয়সীদের জন্য বুস্টার ডোজ গ্রহণের নির্দেশনা থাকলেও, এখন থেকে সেটা নামিয়ে ৪০ বছর করা হয়েছে। ৪০ বছর বয়সী বা তার উর্ধ্বে ব্যক্তিরা টিকাকেন্দ্রে থেকে বুস্টার ডোজ গ্রহণ করতে পারবে।

গত বছরের ডিসেম্বরে করোনার টিকার নিয়মিত কেন্দ্রগুলোতে বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু করে সরকার। প্রথমে ষাটোর্ধ্ব নাগরিক ও সম্মুখসারির কর্মীদের বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু হয়। দ্বিতীয় ডোজ পাওয়ার ছয় মাস পরই শুধু বুস্টার ডোজ নেওয়া যাচ্ছে। ইতিমধ্যে দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন, এমন ব্যক্তিরাই বুস্টার ডোজ হিসেবে তৃতীয় ডোজ পাচ্ছেন। পরবর্তীতে ৫০ বছর বয়সীদেরও বুস্টার ডোজ দেওয়া হয়। এবার বয়সের সেই সীমা আরও কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*