ছাত্রলীগ নেতাকে মারধর, র‌্যাব কর্মকর্তাকে যা বললেন শামীম ওসমান

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার এনায়েতনগর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ ও তার কয়েকজন সমর্থককে বেধড়ক লাঠিপেটা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় র‌্যাব কর্মকর্তার ওপর উষ্মা প্রকাশ করেছেন স্থানীয় এমপি শামীম ওসমান। র‌্যাবের দাবি, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সেখানে লাঠিসোটা নিয়ে অরাজকতা ও কেন্দ্র দখলের চেষ্টা করছিল।

ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ওপর র‌্যাবের পিটুনির সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে র‌্যাব কর্মকর্তার প্রতি উষ্মা প্রকাশ করেছেন স্থানীয় এমপি শামীম ওসমান। শামীম ওসমানকে কাছে পেয়ে এসব লাঠিপেটার শিকার কর্মীরা কান্নায় ভেঙে পড়লেও র‌্যাব কর্মকর্তার দাবি কাউকে পেটানো হয়নি। বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা ১টার দিকে মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান রিয়াদ নেতাকর্মীদের নিয়ে ওই কেন্দ্র পরিদর্শনে যান। ওই সময় তারা স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও মেম্বার প্রার্থী শাহজাহান মাতবরের পক্ষে স্লোগান দিয়ে সিল মারছে- এমন অভিযোগ করেন অপর মেম্বার প্রার্থী জাকারিয়া জাকির। এ নিয়ে সেখানে উত্তেজনা দেখা দেয়।

একপর্যায়ে পুলিশ জাকারিয়া জাকিরের পক্ষে অবস্থান নিয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ওপর বেধড়ক লাঠিচার্জ শুরু করলে জাকিরের সমর্থকরাও পুলিশের সঙ্গে যোগ দেয়। ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতা এ সময় আশ্রয় নেন স্কুলের বাথরুমে। খবর পেয়ে দুপুর তিন টায় ঘটনাস্থলে যান এমপি শামীম ওসমান। ওই সময়ের একটি ভিডিও ইতমধ্যে ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা যায়, এমপি শামীম ওসমানের সমানে বিলাপ করে কেঁদে কেঁদে ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা বলছেন- ‘আমাদের কুকুরে মতো পেটানো হয়েছে, কোন কারণ না বুঝেই। ছাত্রলীগ করিস কিনা এ কথা জিজ্ঞাসা করে খারাপ ভাষায় গালাগাল করা হয়েছে’। তখন শামীম ওসমান উপস্থিত র‌্যাব কর্মকর্তাদের অভিযোগের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করেন। জবাবে সিদ্ধিরগঞ্জের র‌্যাব-১১ এর স্কোয়াড্রন লিডার এ কে এম মনিরুল আলম বলেন, ‘ওদেরকে মারি নাই স্যার। ওরা দেখেন এসব জিনিসপত্র নিয়ে (ধারালো অস্ত্র, লাঠিসোটা দেখানো হয়) আসছে। ওখানে ককটেল আছে। তারা এখানেই ছিল। আপনি সবাইকে জিজ্ঞাসা করেন।’

জবাবে শামীম ওসমান বলেন, ‘এখন নারায়ণগঞ্জ আপনি সামাল দেন। দেখি আপনি পারেন কিনা আর আমি পারি কিনা। আপনি ছাত্রলীগের জয়েন্ট সেকেটারিকে চোরের মতো মারবেন? র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, ‘আমি সর্বদা চেষ্টা করব। ব্যাপারটা ওইরকম নয় স্যার। চোরের মতো পিটানো হয় নাই স্যার। তাদের প্রতিহত করা হয়েছে। এগুলো নিয়ে আসায়।’ এ সময় সাংবাদিকেরা শামীম ওসমানের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তিনি কিছু না বলেই চলে যান।

এদিকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ওপর লাঠিচার্জের প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নিয়ে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ করেছেন শত শত নেতাকর্মী।

না.হাসান/সাএ

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*